সিপিবির এক পা ভোটে, এক পা আন্দোলনে: সেলিম

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৮

কাস্তে মার্কার চূড়ান্ত প্রার্থী ঘোষণা করছেন মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সিপিবির প্রার্থীরা। ছবি: সংগৃহীতএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন কোনো উৎসব নয়, বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম। তিনি বলেছেন, এই নির্বাচন শুধু আনুষ্ঠানিকতা নয়, উৎসবও নয়। এই নির্বাচনের অন্যতম তাৎপর্য হলো, এই দেশ আগামী দিনে কীভাবে চলবে সে বিষয়ে জনগণের ম্যান্ডেড নেওয়া।

আজ শনিবার দুপুরে পুরানা পল্টনের মুক্তিভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে সিপিবির চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশের সময় মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি সিপিবির ৭৪ আসনে কাস্তে মার্কার চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেন। সেখানে তিনি এই নির্বাচনকে আন্দোলনের অংশ হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, সিপিবির এক পা নির্বাচনে আর আরেক পা আন্দোলনে।

মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, ‘দেশ কীভাবে চলবে সে বিষয়ে এখনো আলোচনা দেখছি না। বরং তথাকথিত বড় দলগুলো ব্যস্ত দলছুট করে কাকে কীভাবে দলে আনা যায়, ফরম বিক্রি ও অন্য কীভাবে টাকা আয় করা যায়, তা নিয়ে। নৌকা ও ধানের শীষ লুটপাটের চলতি সিস্টেম বহাল রাখতে চায়। এই বিবেচনায় এরা একই পন্থার। এরা ১ শতাংশ মানুষের স্বার্থ রক্ষাকারী আর বাম জোট ৯৯ শতাংশ মানুষের স্বার্থ রক্ষায়। সেই সংগ্রামের অংশ হিসেবে এক পা নির্বাচনে, আরেক পা আন্দোলনে।’

পরে সেলিম সিপিবি মনোনীত চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করেন। এতে রংপুর বিভাগে পঞ্চগড়-২ আসনে আশরাফুল আলম, ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে প্রভাত সমীর শাজাহান আলম, দিনাজপুর-৩–এ বদিউজ্জামান বাদল, দিনাজপুর-৪ রিয়াজুল ইসলাম রাজু, রংপুর-৬ অধ্যাপক কামরুজ্জামান, কুড়িগ্রাম-২ উপেন্দ্র নাথ রায়, কুড়িগ্রাম-৩ দেলোয়ার হোসেন, গাইবান্ধা-২ মিহির ঘোষ ও গাইবান্ধা-৫ আসনে যজ্ঞেশ্বর বর্মণের নাম ঘোষণা করা হয়।

রাজশাহী বিভাগে সিপিবির প্রার্থীরা হলেন—বগুড়া-৫ আসনে সন্তোষ পাল, বগুড়া-৬ আমিনুল ফরিদ, নওগাঁ-৪ ডা. ফজলুর রহমান, রাজশাহী-২ এনামুল হক ও সিরাজগঞ্জ-৩ শেখ মোস্তফা নূরুল আমিন।

খুলনা বিভাগে কুষ্টিয়া-২ আসনে অধ্যাপক ওয়াহেদুজ্জামান পিন্টু, বাগেরহাট-২ খান সেকেন্দার আলী, বাগেরহাট-৪ শরীফুজ্জামান শরীফ, খুলনা-১ অশোক সরকার, খুলনা-২ এইচ এম শাহাদাৎ, খুলনা-৫ চিত্ত রঞ্জন গোলদার, খুলনা-৬ সুভাষ ছানা মহিম এবং সাতক্ষীরা-১ আসনে মো. আজিজুর রহমান দলীয় প্রার্থী ।

বরিশাল বিভাগে পটুয়াখালী-১ মতলেব মোল্লা, পটুয়াখালী-২ শাহাবুদ্দিন আহমেদ, ভোলা-১ অ্যাড. সোহেল আহমেদ, পিরোজপুর-১ ডা. তপন বসু, পিরোজপুর-২ হাজি হামিদ, পিরোজপুর-৩ দিলীপ কুমার পাইককে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

ময়মনসিংহ বিভাগে জামালপুর-২ আসনে মনজুরুল আহসান খান, জামালপুর-৩ শিবলুল বারী রাজু, জামালপুর-৫ আলী আক্কাস, শেরপুর-১ আফিল শেখ, ময়মনসিংহ-৩ হারুন আল বারী, ময়মনসিংহ-৪ এমদাদুল হক মিল্লাত, নেত্রকোনা-১ আলকাছউদ্দিন মীর, নেত্রকোনা-২ মোশতাক আহমেদ, নেত্রকোনা-৩ অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেন ও নেত্রকোনা-৪ আসনে জলি তালুকদার কাস্তে পেয়েছেন।

ঢাকা বিভাগে টাঙ্গাইল-২ আসনে জাহিদ হোসেন খান, কিশোরগঞ্জ-১ আসনে এনামুল হক, কিশোরগঞ্জ-২ নূরুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ-৩ এনামুল হক ইদ্রিছ, কিশোরগঞ্জ-৫ অধ্যাপক ফরিদ আহাম্মদ, মুন্সীগঞ্জ-১ সমর দত্ত, মুন্সীগঞ্জ-৩ শ ম কামাল হোসেন, ঢাকা-১ আবিদ হোসেন, ঢাকা-২ সুকান্ত শফী চৌধুরী কমল, ঢাকা-৬ আবু তাহের বকুল, ঢাকা-১৩ আহসান হাবিব লাবলু, ঢাকা-১৪ রিয়াজউদ্দিন, ঢাকা-১৫ ডা. সাজেদুল হক রুবেল, গাজীপুর-২ জিয়াউল কবীর খোকন, গাজীপুর-৪ মানবেন্দ্র দেব, নরসিংদী-৪ কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন, নারায়ণগঞ্জ-১ মোঃ মনিরুজ্জামান চন্দন, নারায়ণগঞ্জ-২ হাফিজুল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ-৩ আব্দুস সালাম বাবুল, নারায়ণগঞ্জ-৪ ইকবাল হোসেন, নারায়ণগঞ্জ-৫ অ্যাড. মন্টু ঘোষ, ফরিদপুর-৩ রফিকুজ্জামান লায়েক, ফরিদপুর-৪ আতাউর রহমান কালু, শরীয়তপুর-১ মোদাচ্ছের হোসেন বাবুল (সমর্থিত) এবং শরীয়তপুর-৩ আসনে সুশান্ত ভাওয়াল মনোনয়ন পেয়েছেন।

সিলেট বিভাগের সুনামগঞ্জ-২–এ নিরঞ্জন দাশ খোকন ও হবিগঞ্জ-৩ আসনে পীযূষ চক্রবর্তীকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিভাগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে ঈসা খান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ শাহরিয়ার মো. ফিরোজ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ শাহীন খান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ অ্যাড. সৈয়দ মোহাম্মদ জামাল, কুমিল্লা-৫ আবদুল্লাহ আল ক্বাফী, নোয়াখালী-৩ মজিবুল হক মজিব, চট্টগ্রাম-৮ সেহাব উদ্দিন সাইফু, চট্টগ্রাম-৯ মৃণাল চৌধুরী এবং চট্টগ্রাম-১৪ আসনে আব্দুল নবী সিপিবির চূড়ান্ত তালিকায় রয়েছেন।

আজ সংবাদ সম্মেলনে সূচনা বক্তব্য দেন সিপিবির সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স। এ সময় প্রার্থীদের মধ্যে কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন, আবদুল্লাহ আল ক্বাফী, আহসান হাবীব লাবলু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য

  • image

    zahiruddin mahmud

    ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৮

    কমরেড ৯৯% এর জন্য কথা বলছেন। কিন্তু ১% মানুষের ভোট পাচ্ছেন না। তাই বুলি না দিয়ে, কেন এমন হচ্ছে- তা বস্তুনিষ্ঠ বিশ্লেষণ করে সঠিক করণীয় নির্ধারণ করুন।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আপনাদের ভোটে আসলেও কি আর না আসলেও কি ? আসন তো দূরের কথা সব গুলো আসন মিলিয়ে একলাখ ভোট পাবেন কি না সন্দেহ.. কিন্তু আপনাদের কথা মিডিয়াতে আসে কীভাবে এইটাই কথা।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৮

    Do something for the people for the country.nothing to be done for the Dialog.we want your action for the people not for BNP or Jamayat.

সব মন্তব্য