আ.লীগ জিতবে ১৬৮ থেকে ২২০ আসনে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

ফেসবুকে সজীব ওয়াজেদ জয়ের পোস্ট।প্রধানমন্ত্রীর ছেলে এবং তাঁর তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি–বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, বিভিন্ন জরিপ ও ১৯৯১ থেকে ২০০৮ সালের নির্বাচনের তথ্য বিশ্লেষণ করার পর তাঁর বিশ্বাস, আওয়ামী লীগ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১৬৮ থেকে ২২০টি আসনে জয়লাভ করবে। ২০০৮ সালের নির্বাচনের চেয়েও বেশি ব্যবধানে এবার আওয়ামী লীগ জয়লাভ করবে।

নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে জয় এ কথা বলেন।

সজীব ওয়াজেদ জয় ওই পোস্টে বলেন, ‘এই বছরের আগস্ট থেকে অক্টোবর মাস পর্যন্ত আমরা এযাবৎকালের সবচেয়ে বড় জাতীয় জনমত জরিপটি করাই। নিরপেক্ষ গবেষণা সংগঠন রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট সেন্টার (আরডিসি) দ্বারা এই জরিপটি পরিচালনা করা হয়। এ বছরের মেয়র নির্বাচনের জরিপটিও এই সংগঠনটিই করেছিল। আপনাদের হয়তো মনে আছে, আমার পেজ থেকে সেই জরিপটিও শেয়ার করি, যার ফলাফল নির্বাচনের ফলাফলের সঙ্গে মোটামুটি ভালোই মিলেছিল।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে জয় জানান, এই জরিপ ৫১টি নির্বাচনী আসনের ৫১ হাজার নিবন্ধিত ভোটারের সঙ্গে কথা বলে করা হয়েছে। অর্থাৎ, প্রতি আসনে অন্তত এক হাজার ভোটারের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। ১৯৯১ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত সব নির্বাচনের ফলাফল আমলে নিয়েই এই ৫১ আসনকে বৈজ্ঞানিকভাবে বেছে নেওয়া হয়েছে। এই আসনগুলোয় ভিন্ন ভিন্ন দলের জন্য সবচেয়ে বেশি ভোট দেওয়ার প্রবণতা দেখতে পাওয়া গেছে। এখানে সাধারণত জয়ের পার্থক্য সবচেয়ে কম থাকে। অর্থাৎ এই আসনগুলো নিয়েই দল সবচেয়ে বেশি চিন্তিত ছিল।

প্রধানমন্ত্রীর এই উপদেষ্টা বলেন, যেহেতু জরিপটি মনোনয়নপ্রক্রিয়ার আগে করা হয়েছিল, তাই প্রার্থীদের ব্যাপারে জনমত জানা যায়নি। কিন্তু দলগতভাবে ৫১টি আসনেই আওয়ামী লীগ এগিয়ে আছে। ১২ দশমিক ২ শতাংশ নিয়ে সবচেয়ে কম ব্যবধানে জয়ের সম্ভাবনা জয়পুরহাট-১ আসনে আর ৭৫ শতাংশ নিয়ে সবচেয়ে বড় ব্যবধানে জয়ের সম্ভাবনা বরিশাল-৪ আসনে। যাঁরা এখনো সিদ্ধান্ত নেননি, তাঁদের সবচেয়ে কম সংখ্যা দেখা যাচ্ছে টাঙ্গাইল-৩ আসনে, ২ দশমিক ৫ শতাংশ। এই আসনে আওয়ামী লীগের সঙ্গে নিকটবর্তী দলের ব্যবধান ৪১ দশমিক ৫ শতাংশ। অন্যদিকে, ১৯ দশমিক ৮ শতাংশ নিয়ে সবচেয়ে বেশি সিদ্ধান্তহীনদের সংখ্যা সাতক্ষীরা-৩ আসনে, যেখানেও আওয়ামী লীগের জয়লাভের ব্যবধান ৬৪ দশমিক ৭ শতাংশ।

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি–বিষয়ক উপদেষ্টা বলেন, গড়ে আওয়ামী লীগের জন্য সমর্থন ৬৬ শতাংশ মানুষের, বিএনপির জন্য ১৯ দশমিক ৯ শতাংশ আর ৮ দশমিক ৬ শতাংশ ভোটার সিদ্ধান্ত নেননি। যাঁরা সিদ্ধান্ত নেননি, তাঁদের থেকে আওয়ামী লীগের সমর্থনের ব্যবধান অনেক বেশি। আরও গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি, তা হচ্ছে কোনো আসনেই আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপির সমর্থনের পার্থক্য ১০ শতাংশের মধ্যে নেই। শুধু ২টি আসনেই আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপির সমর্থনের পার্থক্য ২০ শতাংশ। এর মধ্যে ২৮টিতে অর্থাৎ অর্ধেকের বেশি জরিপকৃত আসনে আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপির সমর্থনের পার্থক্য ৫০ শতাংশের বেশি। সমর্থনের পার্থক্য ১০ শতাংশের বেশি হলেই দ্বিতীয় দলটির জন্য তা পার করা মোটামুটি অসম্ভব হয়ে যায়। আর ২০ শতাংশের বেশি পার্থক্য থাকলে একাধিক ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের দ্বারাও তা টপকানো সম্ভব হয় না।

জয় বলেন, এই ফলাফলগুলো বয়স ও লিঙ্গের ওপর নির্ভর করে বের করা হয়েছে, তাই মোট ফলাফল সর্বক্ষেত্রে শতভাগ নয়। আসন অনুযায়ী ‘মার্জিন অব এরর’ ৩ শতাংশ এবং আস্থা স্তর (Confidence Level) ৯৫ শতাংশ। সম্পূর্ণ ৫১ হাজার স্যাম্পলের ‘মার্জিন অব এরর’ শূন্য শতাংশ এবং আস্থা স্তর (Confidence Level) ৯৫ শতাংশ। তিনি বলেন, ‘এই জরিপগুলোর ওপর ভিত্তি করে এবং ১৯৯১-২০০৮–এর নির্বাচনের তথ্য বিশ্লেষণ করার পর আমার বিশ্বাস যে আওয়ামী লীগ এই নির্বাচনে ১৬৮ থেকে ২২০টি আসনে জয়লাভ করবে। ২০০৮ সালের নির্বাচনের চেয়েও বেশি ব্যবধানে এবার আওয়ামী লীগ জয়লাভ করবে।’

মন্তব্য

  • image

    Imran Qatar

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এইসব জরিপ রাখেন সাহেব যদি একবার ভোটটা সুষ্টু হয় তাইলে ২২০ কেন ২০ টা আসন পাওয়াটাও আওয়ামীলীগের জন্য কষ্টকর হবে। লীগকে জনগণ এত ঘৃণা করে।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      100% perfect cmmts.

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      ইমরান সাহেব আপনি আর কত ভুল করবেন এদের (বিএনপি) হয়ে কথা বলে?

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      জনগন না ভাই জামায়াতিরা।

  • image

    Z.Rahman

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ২২০ টা পাবেন সেটা কি ভোট করে নাকি জোর করে !! সরকারের সব উন্নয়ন বৃথা যদি তারা সুষ্ঠ নির্বাচন করতে ব্যর্থ হয়।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      আপনি কি খবর পড়তে আসেন নাকি শিরোনাম দেখে মন্তব্য করতে আসেন!

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    Mr. Joy--are you sure that your party is coming again in power?? But still peoples mended in pending. If you have that confidence then why not ask EC & Govt to make one real level playing field. Then will see real affect.

  • image

    MM Nuruzzaman

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আসনগুলো কোনগুলো বলে দিলে ভোটারদের সুবিধা হতো হয়ত বা নির্বাচন কমিশনেরও।

  • image

    Bahadur Chy

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    স্বপনে পাওয়া জরিপ

  • image

    Rashidullah

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    কাল্পনিক জরিপ। গণতন্ত্রের জন্য যুদ্ধ করেছে যে দল, সেই দলের জনগণের প্রতি বিশ্বাস থাকা উচিত। আগে থেকে ব্যালট পেপারে সিল দিয়ে ভোটের বাক্স ভরলে ... সেই জরিপ সত্য হবে না।

  • image

    Shohug

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    That's really nice. So now atleast we can expect a fair election.....

  • image

    MOHD.MUSADDIQUE CHOUDHURY

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    একেবারে পাক্কা

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    তাহলে আর এত গ্রেফতার না করে, নিশ্চিতে থাকলে আমরাও বাচি

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      I, myself, completed a জরিপ. If election is fair : Awamilig: 30, BNP : 210. If election is Unfair: Awamilig: 220, BNP : 30.

    • image

      sojol

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      I think If election is fair : Awamilig: 235, BNP : 25, JP-30, others 10 If election is Unfair: Awamilig: 190, BNP : 75, JP-25, others 10

  • image

    Sengupta

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জয়লাভ করবে এবং সরকার গঠন করবে। প্রধান বিরোধী দল হবে বিএনপি। বিরোধী দলের নেতা হবেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠু হবে না। অনিয়ম হবে। এটা রোধ করার মতো অবস্থা থাকবে না । নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি কম হবে। কোনো নির্বাচনেই সব মানুষ ভোট দিতে যান না। ১৯৭০-এর নির্বাচনেও প্রায় অর্ধেক ভোটার ভোটকেন্দ্রে যাননি। ভোটের ফলাফল নিয়ে বিএনপি হৈচৈ করবে। কিন্তু তাতে পরিস্থিতির খুব হেরফের হবে না। নির্বাচন সুষ্ঠু না হলে মারাত্মক কিছু হওয়ার আশঙ্কা যারা ছড়াচ্ছেন তারা মতলববাজ। ইউরোপীয় ইউনিয়ন, আমেরিকা, বৃটেন অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন যেমন চায়, তেমনি জামায়াতের খপ্পর থেকে বিএনপির মুক্তিও চায়। জামায়াতকে বুকে নিয়ে বিএনপি পশ্চিমা দুনিয়ার সহানুভূতি পাবে না। নির্বাচনে কারচুপি, অনিয়ম হলেও তার বিরুদ্ধে ব্যাপক আন্দোলন হবে না। কারণ মানুষ খালেদা জিয়া-তারেক রহমানের জন্য জীবন দিতে চাইবে না। আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে যারা হম্বিতম্বি করছেন তারা কেউ আন্দোলন করার মানুষ নন। তারা জনসমর্থনহীন, পরগাছা। শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত জনপ্রিয়তা, তার ক্যারিশমা তাকে আবার প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসানোর জন্য যথেষ্ট।

    • image

      নাজারেথ স্বনন

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      এই তথ্য কি স্কটল্যান্ডের ড্যান্ডি থেকে পাওয়া?

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      খুব ভাল। আপনার মুখেই সব বললেন। এবার বলুন আওয়ামী লীগ কত গণতন্ত্রহীন একটা দল।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    wrong jarip , AL alliance must be wine 299 seat

  • image

    আন্দালিবের বাপ

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আসন অনুযায়ী ‘মার্জিন অফ এরর’ ৯৫ শতাংশ এবং আস্থা স্তর (Confidence Level) ৩%

  • image

    alamgir alam

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    জরিপ এর ফল কর্মীদের মন চাঙ্গা করবে। কিন্তু নেতিবাচক দিক হলো দেশ জুড়ে হানাহানি চলছে নির্বাচন কেন্দ্র করে। হয়তো একদিন মানুষ আর নির্বাচনই চাইবে না।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    তাহলে নির্বাচন এর কি দরকার ?

  • image

    রিদওয়ান বিবেক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ২৫০ আসন থেকে ১৬৮ আসনে অবনমন। কপালে চিন্তারেখার সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে আওয়ামী লীগের।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে অাওয়ামী লীগ দল হিসাবে অস্তিতহীন হয়ে পড়বে।

  • image

    আন্দালিবের বাপ

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    "১৯৭০ সালের নির্বাচনের চেয়েও বেশি ব্যবধানে এবার আওয়ামী লীগ জয়লাভ করবে।" - শুধু ইহাই শুনিবার বাকি ছিল

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আর ফেয়ার ইলেকশনে হলে গণেশ উলটে যাবে!!

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    Time will say

  • image

    Shahidul

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    নীল নকশা তৈরি হয়ে গেছে। এখন ৩০ তারিখ তা বাস্তবায়ন করবে।

  • image

    Hasan Ahmed

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এখনও বেশীর ভাগ মানুষকে জিজ্ঞেস করলে বলে কাকে ভোট দিব জানিনা অথবা চুপ থাকে, পুর্ব অভিজ্ঞতা বলে এরা সব সরকারের বিরুদ্ধে ভোট দিবে।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    বাস্তব অবস্থা পূরো উলটা।

  • image

    M HASAN FUAD

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ৫১ টি আসনে ৫১ হাজার লোকের মাঝে জরিপ করা হয়। আপনারা আওয়ামী লীগের বাহিরে জরিপ করতে পারছেন? আওয়ামী লীগের বাহিরে সাধারন ভোটারের কাছে যাওয়ার সাহস আছে? আওয়ামী লীগের সমর্থক ১৯.৯ শতাংশ যদি বিএনপির পক্ষে রায় দেয়, তব নির্বাচনের ফলাফলা কি হবে একবার ভাবুন। আপনি থাকেন বিদেশে। একবার দেশে এসে সাধারন জনগণের সাথে কথা বলে দেখুন, তারা কি বলে।

  • image

    নাসিম

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ইসি-সিইসি যেহেতু আপনাদের পক্ষে পুরোদমে কাজ করছে সেহেতু তাই হতে পারে

    • image

      Azizul Hoque

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      @ নাসিম No, thats will not happened. Please go to vote center with your family and friends and cast your vote. We will see another result.

  • image

    Azizul Hoque

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    Mr. Joy, You already won the election. The result has been published. Now form a cabinet. We the citizen of the country are observing your activities and will go to vote center on 30th December. In Sha Allah.

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    তাইলে আর ভোট নেয়ার কি দরকার?সরকার গঠন করেন।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    সব মানলাম সব ঠিক আছে। জনগণ পছন্দের প্রার্থীকে নির্ভয়ে ভোট দিতে পারবে কিনা সেটা নিশ্চিত করেন।

  • image

    Sabbir Hossain

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আমি আগেই বলেছি এ কথা। অবৈধ নির্বাচনের মাধ্যমে এটি করা হবে। যে কোন আইনের পাসের ক্ষেত্রে যেন অসুবিধা না হয়। সেজন্যই ২০০ এর উপরে আসন নেবে। এ অবস্থায় নির্বাচন হলে এটি শতভাগ সঠিক প্রমাণিত হবে।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    কতো হিসাব নিকাশ । শুধু নিরপেক্ষ নির্বাচনের কোন হিসাব নিকাশ নাই।

    • image

      mahtab uddin

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      পরাজিতদের কাছে নির্বাচন কখোনো সুষ্ঠ হয় না।

  • image

    Abdullah Al Faruque

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এইসব পেইড জরিপের ফলাফল জনগণ বিশ্বাস করে না। আমরা চাই অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন।

  • image

    Md. Israil Hossain

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    জরিপের এই ফল অত্যন্ত উৎসাহব্যাঞ্জক। কামনা করি এটাই যেন প্রতিফলিত হয়। তবে এখনই আত্মতৃপ্ত হওয়া ঠিক হবেনা। সজাগ থাকাটা জরুরি।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      স্যার - যুক্তরাষ্ট্রর নির্বাচনে হিলারী র জয়ের সকল পূর্বাভাস, সমীক্ষা , সমীকরন , জরিপ , সব লন্ডভন্ড করে কিন্তু ট্রাম্পের উদয় ঘটেছিল

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      নিজেদের জরিপে নিজেরা এগিয়ে থাকা শুভ নয়।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      কিছু জরীপ নামের ধুর্তামী ভোট চুরি বা ডাকাতির পূর্ব লক্ষন। তাই সবার সজাগ থাকাটা জরুরী।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    হম বুঝলাম । তাহলে একটা স্বচ্ছ নির্বাচন দিন। যেখানে সবাই নির্ভয়ে ভোট দিতে পারবে । তাহলে বুঝাযাবে ২২০ আসনে জয় হবেন না পরাজয় হবেন ! আর জরিপের ফল তখন জনগন ঠিক করবে ।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আমার ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিন তারপর জরিপ করেন! !!!

  • image

    Nabankur

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    খুবই ভাল খবর । বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের সত্যিই কোন বিকল্প নেই। বিএনপি জামাতের মত উগ্রপন্থায় বিশ্বাসী দল ক্ষমতায় এলে গনতন্ত্র বিপন্ন হয়ে পড়বে।

    • image

      শাহাবুদ্দীন সামি

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      আওয়ামী লীগের সত্যিই আপনার কোন বিকল্প নাই

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আপনাকে চ্যালেঞ্জ দিলাম, ৫০% সুষ্ঠু নির্বাচন হলেও আওয়ামীলীগ গো হারা হারবে।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      সুষ্ঠু নির্বাচনে তো বিএনপি সিলেটের মত কেন্দ্র দখল করে বাক্স ভরে দিবে- তখন কি বলবেন???

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮

      নির্বাচন সুষ্ঠু হবে যদি বিএনপি–জামাত গতবারের মত না করে।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    very good.we also want this.but we want to vote. not like as city corporation election.we want free and fare election.thank you

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    জনাব জয় আপনারা তো জেনেই গেলেন নৌকা কম পক্ষে ১৬৮ আসনে জিতলেও একক সংখ্যা গরিষ্টতা পেয়ে সরকার গঠন করছে। এবার আল্লাহর ওয়াস্তে সুস্ত চিন্তা করে নিরপেক্ষ নির্বাচন দেন। জনগনের ভোট কষ্ট করে আপনাদের কর্মী বাহিনীর মাধ্যমে না দিয়ে জনগন কে দিতে দেন। জনগন আপনাদের ৩০০ আসনে বিজয়ী করার অপেক্ষায় আছে।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এটা আপনার বিশ্বাস নয়! এটা নির্বাচন এবং নির্বাচনের ফলাফল কেমন হতে যাছে তা দৈবক্রমে আগাম বলে দেয়া মাত্র। এইদেশে জনগনের টাকায় জনগনের সাথে কম নাটকতো আর হচ্ছে না।

  • image

    দাউদ দস্তগীর

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    খোয়াব দেখতে পয়সা লাগে না ।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    তাহলে এতো ভয় কিসের? সুস্ঠ নির্বাচন আয়োজনের

  • image

    Fokrul Bashir

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ভোট করে নাকি জোর করে ?

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এতই যদি জনপ্রিয়তা তাহলে সিটি ইলেকশন গুলোতে ভোট ডাকাতি করা লাগলো কেন??

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      সিলেট সিটিতে ভোট ডাকাতি করেই জিতেছে। আর ডাকাতি করে বেশি হলে ১৫/২২ হাজার ভোট বেশি পাওয়ার কথা। কিন্তু সিলেট ছাড়া বাকীগুলোতে তো ৫০/৬০ হাজারের ব্যবধানে নৌকার প্রার্থীরা জিতেছে।।।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    So why are you not giving fair election?

  • image

    Kazi Sharfaraz Mawla

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    গণনা যদি সত্যি হয়ে থাকে,তাহলে কার ভয়ে নিজেরা রেফারির ভূমিকা নিলেন ! কার ভয়ে,কিসের ভয়ে সন্ধ্যা নামার সাথে সাথে হাজার হাজার সাধারণ মানুষকে গ্রেফতারের পথ বেছে নিলেন ! ধরে নিলাম যে আপনাদের পরিকল্পনা আছে,সরকারে থেকেই যাবেন। তবুওতো এভাবে গ্রেফতার করতে পারেননা ! আসলে,আপনাগের জরিপ সম্পূর্ণ এর বিপরীত বলেই,অপঁড়ারা ধরপাকড়ের পথ বেছে নিয়েছেন ! বিজয় নিশ্চিত জেনেও কেউ সুস্থ মস্তিষ্কে দেশটাকে পুলিশি রাষ্ট্র করতে পারেনা !

    • image

      Md. Allo mia Allo

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      ভাই আমি তো একজন সাধারণ মানুষ। কই আমাকে তো কেউ গ্রেফতার করছে না ।আমাকে তো কেউ হয়রানি করছে না।সাধারণ মানুষের পালস আগে বি এন পি কে বুঝতে হবে ।আর এটা তারা যতদিন না বুঝবে ততদিন পর্যন্ত তারা সরকারে আসতে পারবে না।বিএনপির কোনো আন্দোলনই সাধারণ মানুষের জন্য ছিল না যেটা ছিল সেটা শুধু তাদের নেতাদের এবং কর্মীদের জন্য ।

    • image

      Azizul Hoque

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      @ Allo Why you will be arrested? You are not compititor of Governement or any any leader of the AL party.

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮

      @Md Allo mia Allo ভাই,আপনি সৌভাগ্যবান এবং চাঁদ কপালও বটে।এবার বলেন তো,আওয়ামি লীগ এবং আওয়ামি লীগ সর্থনকারী জোট ছাড়া। সক্রিয় রাজনীতি করে,রাজনীতিকে সমর্থন করে,বিরোধী দলের এমন একটা নেতা,কর্মী,সমর্থক আপনি দেখাতে পারবেন,যার বিরুদ্ধে মামলা,হামলা হয়নি !

  • image

    Masum Zaman

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    u said 18 crore ppl are with you, then u should win in 320 seats not only 168-220. plz declare again for 320 seats win.

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এ জরিপ প্রশাসনের দিক নির্দেশনা কি ?

  • image

    Masum Zaman

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    now plz relax and stop cops arresting opposition candidates as they are not ur competent (according to ur stats)

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আল্লাহর ওয়াস্তে সুস্ত চিন্তা করে নিরপেক্ষ নির্বাচন দেন। জনগনের ভোট কষ্ট করে আপনাদের কর্মী বাহিনীর মাধ্যমে না দিয়ে জনগন কে দিতে দেন। জনগন আপনাদের ৩০০ আসনে বিজয়ী করার অপেক্ষায় আছে।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    বিরোধী দমন, নিপীড়ন, নির্যাতন বন্ধ করেন । জনগণের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিন । বাংলাদেশের জনগণ জরিপে নয়, নিজের ভোটাধিকারে বিশ্বাস করে ।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    it seems a realistic survey

    • image

      Abu Toha

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      Realistic...

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮

      It seems a plastic survey!

  • image

    Md.Babul Hossain

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এটা দিনতারা দেখার মতো ফলাফল।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    মাননীয় নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ করি, এমন ভাবে নির্বাচনের পরিবেশে বিভিন্ন সম্ভাবনার কথা যদি আজ সরকারী দল ব্যতিরেকে অন্য কেউই করত, তাহলে আপনারা মামলাসহ হামলা করতেন কি না? আমাদের perception বলে যে, এ যাবত কাল ধরে তাই হয়ে আসছে। হয় আপনাদের হুকুম করা হত "ওদের ধরেন" আর না হলে পুলিশ নিজেই "ওদের" ধরে আনত। ডিজিটাল সুরক্ষা আইনে ১০০টা অজামিনযোগ্য মামলা দেওয়া হত। এই বারে [এই ব্যক্তির ক্ষেত্রে] তেমন একটা কিছু করে দেখান।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    মি. জয় সাহেব তাহলে কেন এতো ভয় পান নিরপেক্ষ নিবাচন দিতে। জনগনের টাকা চুরি করে এমন জরিপের রিপো্ট পাওয়া যাই।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদকে লাগবে, তাই না?

  • image

    Muhammad Rahman

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    well done

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ফেয়ার ইলেকশন দিয়ে সব সিটে জয়ী হোন আপত্তি নাই।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    যদি তাই হয় তবে কেন এত ধর পাকর করা হচ্ছে । বিরোধী দলকে একটু সযোগ দেন। আগেই ফল ঘোষনা করে রাখলেন? মানুষ কেমন করে আপনাদের বিশ্বাস করবে?

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আওয়ামী লীগ ১৬৮ আসনে জিতবে। হতে পারে, দেশের মানুষ একটু কেমন যেন হয়ে গেছে, মিথ্যাবটিকায় তারা বোধ হয় একটু কাবুও।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ভাই জান, আমরা কি ভোট কেন্দ্রে যেতে পারব, অসুরদের চোখ রাঙ্গানিকে তুচ্ছ করে, যদি তাই হয়, তবে অনেক কিছু ওলট পালট হয়ে যাবে। বিনীত একজন অতি সাধারন এক জন ভোটার।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    সুষ্ঠ নির্বাচন হলে ১৬৮/২২০ পরের কথা ১৬/২২ টা সিট পায় কিনা সন্দেহ আছে।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      ভুলে যান, কিভাবে ২০০৮ সালে বাংলাদেশের সবচেয়ে অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনে বিএনপি-জামাত মাত্র ৩০টি আসন এ জয়লাভ করেছিল। এবার বিএনপি-জামাত ভোটে জয়লাভ করবে, এই রকম দিবা স্বপ্ন দেখার সাহস করেন কিভাবে?

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      আপনাদের জন্য সুষ্ঠ নির্বাচন করতে ড. ইয়াজউদ্দিন আহম্মেদকে লাগবে। দুর্ভাগ্যক্রমে যদি ৩০০ আসনেও জিতে যান আপনারা, তখনও বলবেন নির্বাচন সুষ্ঠ হলে ৪০০ আসন পেতাম।

    • image

      raju

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      সঠিক বলেছেন

  • image

    ataur

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    বাংলাদেশের জনগণ জরিপে নয়, ভোটাধিকারে বিশ্বাস করে ।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      সে জন্য আপনারা মন্তব্যর খই ফোটান আর আমরা ভোট দিয়ে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করবো ইনশাআল্লাহ ।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    নির্বাচন আসলেই জয় সাহেবের জরিপ চোখে পড়ে

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      এখন অনেক কিছুই আপনার চোখে পড়বে, আর নির্বাচনের পর শুধু সর্ষে ফুল চোখে পড়বে।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    হা হা হা মি.জয় ক্ষমতাসীনদের চোখে সবসময় রঙিন চশমা থাকে,, ! যা দিয়ে আসলে সাধারণ জনগনের ভাবনা চিন্তা ও মতামতগুলা দেখা যায়না!!আর আপনি তো দেখতেই পাবেন না !!কারণ আপনার চশমাটা তো আরো পুরু! যেমন আপনার দেয়া পোস্টের বিপরীতে কমেন্টগুলা সংবাদপত্র ও আপনার পোস্ট থেকে সংগ্রহ করেও দিলেও আপনি দেখতে পাবেন না!!! তাই ফাঁকা মাঠে আপনারা গোল দেয়ার স্বপ্নে বিভোর থাকতেই পারেন!!! তাই বলছি সুষ্ঠু নির্বাচন দিয়ে একটু খোলা মাঠে নেমে দেখবেন,,,,,,

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      ইরাকের সাদ্দাম বাহিনী নিশ্চিতভাবে হেরে যাবে জেনেও কিন্তু এমন কথাই প্রচারে ব্যস্ত ছিল

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    Sorry to say In this process, AL got all the seat. Thank you.

  • image

    তানভীর

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    তাইলে সুষ্ঠু নির্বাচন করতে আপনাদের ভয়টা কোথায়

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    Inshallah, The victory is near. May Allah bless " Shaikh Hasina " for her good works.

  • image

    গোপাল বোষ

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আশাকরি জরিপটা নির্বাচনের পরিপ্রেক্ষিতে করা হয়েছে।

  • image

    KAMRUL ALAM

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভাইয়েরা, দয়া করে খন্দকার মোশাররফের টেলিফোন সংলাপ নিয়ে কিছু বলবেন ?

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      খালি বিএনপির ফোনালাপ কেন ফাঁস হয় ! কিন্তু খুব কাঁচা কাজ , ক্লাস ফাইভ পড়ুয়াও এর থেকে ভাল ভেংগে ভেংগে ইংরেজি বলতে পারে কিন্তু মোশাররফ সাহেব একজন উচ্চমানের শিক্ষাবিদ উনি এমন ভাবে ইংরেজি এবং কথা বলবেন তা বিশ্বাসযোগ্য!!?

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      কম্পলিটলি ভূয়া, কোন দেশের গোয়েন্দা বাহিনী এতটা বেকুব না যে টেলিফোনে এত স্পর্শকাতর আলাপ করবে।

  • image

    Mir Md Mofazzal Hossain

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    বিজয়ের মাসে নৌকায় ভোট দিয়ে বিএনপি-জামাত-ঐক্যফ্রন্ট জোটকে বুঝিয়ে দেয়া হবে বাংলাদেশ কোন সন্ত্রাসী-রাজাকার-জঙ্গীর দেশ নয়।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮

      হাতুড়ি সন্ত্রাসীরা সবচেয়ে বড় জঙ্গি।

  • image

    Atiqur Rahaman Dorzi

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    জরিপ ঠিক আছে । ২২০ এর বেশি আসন পাবে আওয়ামী লীগ ইনশাল্লাহ। বিএনপি জাসাতকে ভোট দেয়ার কোন কারন দেখিনা

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এটাই বর্তমান বাস্তবতা। চারিদিকে নৌকার পক্ষে যে গনজোয়ার দেখা যাচ্ছে ইনশাআল্লাহ ৩০ তারিখ বিপুল ভোটে নৌকার বিজয় হবে।

  • image

    raju

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    মনোবল চাঙ্গা করার কৌশল ছাড়া কিছুই না।

  • image

    Mizanur Rahman

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এ জন্য শেখ হাসিনার সরকার দেশের উন্নয়ন আর সুখী সমৃদ্ধির জন্য বার বার হাজার বার দরকার।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      সেটা জনগণকে নির্ধারণ করার সুযোগ দিন.. বাংলার জনগণ কখনও ভুল করে না... আর আপনাদের ভয়টা সেখানেই মি. মিজান

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      THAT'S WHY ELECTION ENGINERRING IS READY.

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    তারমানে সবকিছু রেডি!!!

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    হ্যা, খুব ভালো। তাহলে সুষ্টু নির্বাচনের ব্যবস্থা করেন শিগগির। খেলার মাঠ হোক সমান সমান জনগন সানন্দে ভোট দিক কারণ। জিতবেন তো আপনারাই, তাই ইতিহাস সৃষ্টি করুন।

  • image

    MD. FAISAL

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া সচেতন কোটা আন্দোলনকারীদের কথা বাদই দিলাম, স্কুল কলেজের কিশোর শিক্ষার্থীরাই যে এ সরকারকে পছন্দ করে না, সেটা তারাতো আপানাদের চোখে আংগুল দিয়ে দেখিয়ে দিল মাস কয়েক আগেই। WE WANT JUSTICE বলে দুইজন সহপাঠী হত্যার বিচারটাই কি শুধু তারা চেয়েছিল? আপনাদের ডিজিটাল, স্যাটেলাইটের গল্পকে তাচ্ছিল্য করে তারা প্ল্যাকার্ডে লিখেছে ‘৯ টাকার ১জিবি নেট নয়, নিরাপদ সড়ক চাই’ কিংবা ‘4G স্পিডে ইন্টারনেট নয়, 4G স্পিডে বিচার ব্যবস্থা চাই’।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      আপনি কি নিশ্চিত যে বিএনপি জিতলে সব সমস্যা সমাধান করবে?

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      জনাব, স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরাসহ সাধারণ জনগণ সরকারের অনেক কার্যক্রম এই অসন্তুষ্ট (আমি সহ)। তার মানে এই না যে গ্রেনেড হামলায় আদালতে সাজাপ্রাপ্তদের ক্ষমতায় বসিয়ে দেব।

  • image

    মাসুদ রানা

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ধন্যবাদ জয় সাহেব। এরকমটা হওয়ার কথা বর্তমান সাজানো পুলিশ প্রশাসন, আদালত আর নির্বাচন কমিশনের বিন্যাসে। না হলেও বুঝতে হবে আপনাদের ভয়ংকর কোনো গাফিলতি রয়ে গেছে। তবুও সাবধানে খেলুন, কোটি মানুষের উপস্থিতি আর সেই আঙ্গিকে ধোঁকাবাজি হয়তো একটু বেশিও হয়ে যেতে পারে সামলানোর জন্য। বিএনপি বা জনগণ কোনো একটাকে ভোটের বাইরে রাখুন।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ফলাফল প্রস্তুত শুধু ৩০ তারিখের অপেক্ষা।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    যদি তাই হয় তবে কেন এত ধর পাকর করা হচ্ছে । বিরোধী দলকে একটু সুযোগ দেন।

  • image

    Fahim

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ১৬ টি আসন পাবেন কিনা সন্দেহ!

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    Ha Ha , He Knows everything , Very Powerful without any political position .Directed the Election engineering via the EC. Now the drama is about to be played.

  • image

    Mominul Islam

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এইটা কি তার জরিপ নাকি প্লান?

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    Yes, you need similar election engineering as like the recent Mayor election, and only then your prediction will be accurate as like the Mayor election.

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      That’s the way you think and getting pleasure, sorry for you.

  • image

    Delowar Hossain

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    The objectives of the liberation war was to establish economic, social, voting right and right to freedom of speech. Currently, people of this country are deprived of every right. Another liberation war is nocking to our door. In this war of 30 december, the true freedom will be achieved.

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      Yeah, with this war BNP JAMAT will see red cards forever.

  • image

    nasiruddin

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    YES . By power.

  • image

    mohammad rahman

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    "ভোটের ঢোল" বলছে উননয়নের পক্ষে ২৫০ - পরিবর্তনের পক্ষে ৫০

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      বাহ্ নিজের ঢোল নিজেই পেটান 😅

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আপনাদের ইসি তাহলে সে ব্যবস্থাও করে রেখেছে? কবে মুক্তি পাবে বাংলাদেশ? হায় খোদা। আর সহ্য হয় না।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    জয় সাহেব, নৌকায় ভোট দিলে কি আমি চাকরি পাবো, ১০ টাকা চাল পাবো??? নাকি হাতুড়ি পিটা করবেন আবার??? জানতে চাই

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    জরিপ করেই তো সরকার গঠন করতে পারেন, শুধু শুধু এত অর্থদণ্ডের কি প্রয়োজন ? ফালতু চারিদিকে হানাহানি-কানাকানি লাগিয়ে রাখছেন !

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      এই বুদ্ধি নিয়া মন্তব্য না করাই শ্রেয়?

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এতোই যখন জরীপে এগিয়ে নিরপেক্ষ সরকার দিলেন না কেন ?

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      নিরপেক্ষরা কোন পক্ষ?

  • image

    রাজিব

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    নির্বাচন চলাকালীন এই ধরনের প্রচারনা আচরণ বিধি লঙ্ঘন, যারা এভাবে ছলছাতুরি করে ক্ষমতা দখল করে তারা জনগণের কল্যাণ করবে বিশ্বাস করার কোন কারন নাই।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      বিশ্বাসে মিলায় বস্তু।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    বিশ্বাস হচ্ছেনা জনাব, ...

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    নিরপেক্ষ নির্বাচন দিন,...

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      ভিক্ষাবৃত্তির অভ্যাস আর গেল না? দেশ মধ্যম আয়ের হয়ে গেছে এখনো বিএনপি জামাতের আমলের মত ভিক্ষার ঝুলি নিয়ে ঘুরে?

  • image

    জয় সরকার

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    নির্বাচন কমিশন সবার জন্য সমান সুযোগ সৃষ্টিতে ব্যর্থ. ... এই অবস্থায় আদৌও ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবে কিনা তা নিয়ে শংকিত সাধারণ জনগণ,,,,

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      যারা ৮০% জনসমর্থনের দাবী করে তাদের সুযোগের দরকার হয় না?

  • image

    Azizul Hoque

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    কারও কোনো উসকানিতে পা দেওয়া যাবে না। বিএনপির কোনো বন্দুক-পিস্তল অস্ত্র নেই, শুধু রয়েছে ভোটের দিনে একটি ব্যালট পেপার। এই ভোটই অস্ত্র। যা দিয়ে সরকার পরিবর্তন করা যেতে পারে। তাই পরিবর্তনের জন্য আগামী ৩০ তারিখে নির্বাচনের দিন ধানের শীষে ভোট দিন ।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

      আজিজ ভাই, ইনশাআল্লাহ ৩০ তারিখ সবাই যাবো নৌকা মার্কায় ভোট দিব।

  • image

    Rajib Kabir

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    সুষ্ঠ নির্বাচন দিলে আপনি দাঁড়ালেও জিততে পারবেন কিনা আমার সন্দেহ হয়।

  • image

    Sadik Insan

    ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮

    It's an excellent opportunity for current Government to introduce a very crucial new election tradition Here in our golden Bangladesh. Please make a History by establishing a reliable Word Class Election right this time. Most of the time opposition party wins under the inspiring system of election in USA and many other Nations. No true contentment and peace of mind in making a government again by so called corrupt Election. If people vote, you will win InnshaAllah. Show the true Bravery to make a Real Difference! Good Luck!!!

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮

    সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন তো কোন নির্বাচনই হয়মি, হয়েছে ফাইজলামি। আপনি এই সব ফাকা আওয়াজ দিয়ে লাভ নাই। জনগণ ত্রিশ তারিখ কি রায় দেয় তা দেখার জন্য অপেক্ষা করেন!!! আপনি তখন আওয়ালীগের জায়গায় বিএনপির নাম লিখে দিতে বাধ্য হবেন।

  • image

    Tareq Ahmed

    ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮

    জয় বাংলা

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮

    সব সময় বিএনপির সাথে জামাতকে জড়ায়ে কি লাভ?

  • image

    Dr.Mizan Siddiqi

    ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮

    If you do not understand margin of error and CI then do not believe such a large sample size survey. Do it yoir one. No more emotion in politics. The country must be based on knowledge. 3rd class politicians will be uprooted this time. You you did a good job for AL.

  • image

    Mr.RupoM.

    ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮

    পরিসংখ্যান অনুযায়ী আওয়ামীলীগের বিজয় হবে ১০০% নিশ্চিত করেই বলা যায়। তারপরও সতর্ক থাকতে হবে, শত্রু বাহিনী বসে থাকবেনা সুযোগ পেলেই ছোবল মারার চেস্টা করবে।

সব মন্তব্য