সাতক্ষীরায় ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াতের নেতা গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক,সাতক্ষীরা ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

জি এম নজরুল ইসলামসাতক্ষীরা-৪ (শ্যামনগর ও কালীগঞ্জের একাংশ) আসনের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী জি এম নজরুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার বেলা দেড়টার দিকে শ্যামনগর উপজেলা সদরের নিজ বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

নজরুল ইসলাম জামায়াতের নেতা। বিএনপির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন তিনি। নজরুলের সঙ্গে গ্রেপ্তার করা হয়েছে জামায়াতের নেতা ও শ্যামনগর উপজেলা পরিষদের বরখাস্ত চেয়ারম্যান আব্দুল বারী, পদ্মপুকুর ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর আবদুর রব ও জামায়াত নেতা শেখ আব্দুল বারীকে।

সাতক্ষীরা জেলা জামায়াতের প্রচার সম্পাদক আজিজুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, তাঁরা স্বাভাবিকভাবে নির্বাচনী প্রচার চালাতে পারছেন না। তাঁদের পোস্টার ও প্রচারপত্র লুট করে পুড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে নিয়মিত। নেতা-কর্মীদের হুমকি-ধমকি দেওয়া হচ্ছে। ফলে নির্বাচনী কৌশল নিয়ে বিএনপির প্রার্থী জামায়াতের নেতা নজরুল ইসলাম তাঁর ইসমাইলপুর গ্রামে বাড়িতে দুপুরে কয়েকজনকে নিয়ে পরামর্শ করছিলেন। বেলা দেড়টার দিকে শ্যামনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আনিছুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল সেখানে যায়। একপর্যায়ে নজরুল ইসলামসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

আজিজুর রহমান দাবি করেন, তাঁদের জানামতে যে কয়টি মামলা রয়েছে সব কটিতে নজরুল ইসলাম ও আব্দুল বারী জামিনে আছেন।

শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম চারজনকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, নাশকতার অভিযোগে দায়ের করা ১২টি মামলায় জিএম নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে, পাঁচটি মামলায় আব্দুল বারীর বিরুদ্ধে ও চারটি মামলায় শেখ আব্দুল বারীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে এসব পরোয়ানা পাওয়া গেছে। পরোয়ানার সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। তবে আবদুর রবের বিরুদ্ধে মামলা বা পরোয়ানা আছে কি না, তা তিনি তাৎক্ষণিকভাবে বলতে পারেননি।

মন্তব্য

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    কিছুদিন যাবৎ সারা দেশে বিরোধী দলের নেতা কর্মীদের উপর, তাদের পরিবারের নিরীহ সদস্য ও সাধারণ সমর্থকদের উপর আওয়ামী গুন্ডা বাহিনীর হামলা-মামলা ও ধর পাকড়াও দেখে মনে হচ্ছে, আওয়ামী পুলিশ, আওয়ামী প্রশাসন, আওয়ামী নির্বাচন কমিশন ও আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীদের আচরন দেখেও মনে হচ্ছে, আওয়ামী লীগ জনমতে বিশ্বাসী কোন দল নয়, তারা গায়ের জোরে দেশ পরিচালনার রাজনীতিতে বিশ্বাস করে। তাদের প্রতিহিংসার রাজনীতিতে আজ মানবাধিকার ভুলুন্ঠিত, গণতন্ত্র নির্বাসিত। তারা হাজার হাজার নেতাকর্মীকে গুম করে রেখেছে। লাখ লাখ নেতাকর্মীর নামে মামলা করেছে। ৩০ ডিসেম্বর ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিতের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের প্রতিহিংসার রাজনীতির সমুচিত জবাব দিতে গণতন্ত্রকামী জনতা আজ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। দেশের আশিভাগ মানুষ ধানের শীষের পক্ষে। দেশের মানুষ ভোট ডাকাত আর ব্যাংক ডাকাতদের আর ক্ষমতায় দেখতে চায়না। এজন্য তারা হামলা মামলা ভয়ভীতি দেখিয়ে ভোট ডাকাতি করতে চায়। জনগণ এবার আওয়ামী লীগের দুঃস্বপ্ন পূরণ হতে দেবে না। ব্যালটের মাধ্যমে তাদের উচিত শিক্ষা দেবে।

    • image

      Hassan Mahmud

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      শতভাগ সমহমত,,,,

  • image

    রিদওয়ান বিবেক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আমেরিকার নেভাদায় মৃত ব্যক্তি নির্বাচিত হয়েছেন।জনপ্রিয়তা এমনই জিনিস যা কেড়ে নেয়া যায় না,অর্জন করতে হয়।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এখন আওয়ামীলিগের নেতা কর্মিদের নামে আগাম কিছু গায়েবি মামলা দিয়া রাখেন জানুয়ারী মাস থেকে কাজে লাগবে।

  • image

    Akash Islam

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আহা প্রথম আলো, হেডলাইন কি? এ ধানের শীষের চেয়ে বড় বেপার হলো জামাত নেতা যার বিরোদ্ধে ২০১৩/২০১৪ সারের আগুন সন্ত্রাসের মামলা ১৮/২০টা!

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    Victory day and no Jamat. Thanks to the government.

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    তত্বাবধায়ক ব্যবস্থা থাকলে এরকম হতোনা৷জাতীয় নির্বাচনে দলীয় সরকার যে কত খারাপ হতে পারে এটা তার জ্বলন্ত উদাহরণ৷

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      সেই তত্বাবধায়ক বেবস্থা ম্যাডাম খালেদা ইয়াজুদ্দিনকে দিয়ে খাইছে

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    এই জামায়াতিকে নির্বাচনের আগে কেনো গ্রেফতার করা হলনা, কেনো তাকে এ পর্যন্ত আসতে দেয়া হল?

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আলো চাই ! মুক্তি চাই ! প্রানের স্পন্দন চাই ! বাঁচার মত বাঁচতে চাই ! জামাত-শিবির-রাজাকার মুক্ত বাংলাদেশ চাই ! !

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      ভোট দিতে দিবেন তো???

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    বেশ কিছু অতি উৎসাহী পুলিশ আছে এদের কর্মকান্ডে কমিশন যেমন বিব্রত হবে এবং সুষ্ঠু নির্বাচন বাধাগ্রস্থ হবে। আর অতি উৎসাহীদের মনে রাখা দরকার ক্ষমতা আওয়ামী লীগ হারালে তারা ক্ষতিগ্রস্থ হবেনা। কিন্তু বেচারা অতি উৎসাহীদের চাকরি হয়তো হারানো লাগবে।

  • image

    Mohammad Ali Refai

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীদের গ্রেপ্তার করে নিষ্ক্রিয় করা ছাড়া মহাজোটের হাতে আর কোন বিকল্প নেই।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ধানের শীষে ভোট দেওয়া মানেই ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের সাথে বেঈমানী করা।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      বাকশাল কে সমর্থন করা মানে অপরাধীদের সমর্থন করা,,,,,

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      বাংলাদেশে দুই ধরনের লোক আছে ১. গনতন্ত্রের পক্ষে ২. গনতন্ত্রের বিপক্ষে। ৭ ই মার্চের ভাষন ভালোমত শোনেন কি জন্য স্বাধীনতা যুদ্ব শুরু হয়েছিল।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      যারা ভোট দিতে দেয় না, যারা অকারনে মানুষকে হত্যা গুম করছে তারাই নব্য রাজাকার।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      নৌকার যাত্রী এখন রাজাকার পাকি কমান্ডো মেজর।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    একটা চুটকী বলি? একটা চুটকী বলি? একটা চুটকী বলি? ৩০ ডিসেম্বর নাকি নির্বাচন :P :P :P :P

  • image

    নাসিম

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    League wants again ...govt

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    প্রতারণার নির্বাচন।

  • image

    NAhmed

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    দেশের মানুষ ২ ভাগে বিভক্ত: গণতন্ত্রের পক্ষের শক্তি ও গণতন্ত্র বিরোধী শক্তি।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    রাজাকার নিপাত যাক ( গুষ্টিসুদ্ধ)

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আওয়ামীলীগ সব সময় জোর জবরদস্তি করে নির্বাচনে জয়ী হয়েছে???

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      শতভাগ ঠিক বলেছেন৷বর্তমানে একটা গণবিষ্ফোরন দরকার৷

  • image

    NAhmed

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    স্বাধীন বাংলাদেশে "গণতন্ত্র মুক্তি পাক গণতন্ত্রের বিরোধী শক্তি নিপাত যাক"

    • image

      Mir Md Mofazzal Hossain

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেশের জনগন সকল বেইমান, যুদ্ধাপরাধী ও স্বাধীনতা বিরোধী মদদ দাতাদের স্ব- মুলে উপড়ে ফেলার জন্য রায় দিবে……ইনশাআল্লাহ।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    গণতন্ত্র বিবেচ্য নয়, বিবেচ্য দেশবিরোধীদের বিনাশ।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    প্রহসনের নির্বাচন, ক্ষমতালোভী ক্ষমমতাসিনদের মুখে নীতিবাক্য আর মানায় না।

  • image

    Sahabuddin Ahmed

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আজ মানুষ অনুধাবন করছে তত্ত্বাবধায়ক কেন দরকার ছিলো

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      সেই তত্বাবধায়ক বেবস্থা ম্যাডাম খালেদা ইয়াজুদ্দিনকে দিয়ে খাইছে/

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      ঠিক বলেছেন৷নির্বাচন হয় কিনা সন্দেহ আছে৷

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    শিরোনামে ধানের শীষের প্রার্থী বলে জামাতের প্রার্থী’র বিষয়টি গোপন করার চেষ্টা করেছে প্রথম আলো। তবে এ জাতীয় গ্রেফতার মোটেই কাম্য নয়।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    "নজরুল ইসলাম জামায়াতের নেতা। বিএনপির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন তিনি।"- কুখ্যাত এই রাজাকার জামাতীর প্রতি প্রথম আলোর আবেগ ৩০ লক্ষ শহীদের প্রতি অবমাননার শামিল। ২০০১-২০০৬ সালে এই রাজাকারের স্বরুপ জাতি প্রত্যক্ষ ক্রেছিলো।

    • image

      S. M. Abdul Haque

      ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮

      কেউ হয়ত এটা না জেনেই মন্তব্য করছেন আসলে নজরুল কোনদিন রাজাকার ছিলেন না দেশ স্বাধীনের পর তিনি জাসদ করতেন এবং শ্যমনগরে জাসদের কোষাধক্য ছিলেন ১৯৯১ সালে তিনি প্রথমে জামাতের হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহন করেন। সময়টা এদিক ওদিক হতে পারে একটু খোজ নিয়া দেখেন।

  • image

    Raj

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    যুদ্ধাপরাধীরা যে এখনো বাংলাদেশে আছে - আমাদের বড় লজ্জা. এরা পাকিস্তান চলে যায় না কেন? পাকি খেদাও যুদ্ধে এদের অত্যাচার জাতি ভুলতে বসেছে. এরা মরন কামড় দেওয়ার জন্য বিভিন্ন রুপে ঘুরে ফিরে আসতেছে

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আওয়ামি পুলিশ আদালতের জামিন মানে না।

  • image

    Rashidullah

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    গ্রেফতার মানে আন্দোলন সফল।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    জামাত গ্রেপ্তার করলে কোন সমস্যা নাই।

  • image

    kamal ahmed chowdhury

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    জামায়াতের ইলেকশন মুক্তিযোদ্ধা আর শহীদ দের অপমানের সামিল

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    If he is fugitive - then why EC gave him green card?

  • image

    biplob

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    বিজয়ের দিনে নাশকতাকারী জামায়াত নেতা গ্রেফতার !!

  • image

    Khurram Sajid

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    তারা পরিস্থিতিকে খারাপ দিকে ঠেলছে। তাদের পরিণতির জন্য আর কেউ দায়ী থাকবে না, তাদেরকেই দায়ী থাকতে হবে।

  • image

    palas

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    ব্যাপক বিনোদন মুলক নির্বাচন হতে যাচ্ছে এই ২০১৮ সালে

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আপনারা যানেন রেফারি তাদের, মাঠও তাদের, তাহলে কেন খেলতে নামছেন?

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

      ২০১৪ সালে না যাওয়ার কারণে বিরোধীদের দোষারোপ করা হয়েছিল আর এখন যাওয়ার কারণে দোষারোপ করছেন৷

  • image

    মহম্মদ সালাউদ্দিন

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    জামাতিদের দেশেই থাকতে দেওয়া উচিত নয়।

  • image

    Shahrear Ahmed

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    আজকে দেখলাম নীলফামারী -২ আসন থেকে জামায়াত প্রার্থী মনিরুজ্জামান ধানের শীষ প্রতিক নিয়ে নির্বাচনে দাড়িয়েছেন।খবর নিয়ে জানলাম উনি মুক্তিযোদ্ধা!!!!!🙊🙊🙊। সে যতই মুক্তিযাদ্ধা হোকনা কেনো,আমি নিশ্চিত সে জামায়াতের সাথে থেকে এতদিনে রাজাকার হয়ে গেছে।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    যুদ্ধাপরাধী এবং জঙ্গিদের পৃষ্ঠপোষকরা কোনভাবে জাতীয় সংসদে প্রবেশ করতে না পারে সে বিষয়ে সর্বাত্নক ব্যবস্হা নেয়া সময়ের দাবি ।

  • image

    MD ASHRAFUL

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    2018 একটা প্রহসনের নির্বাচন হতে যাচ্ছে ।

  • image

    MD ASHRAFUL

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    নির্বাচনী প্লেয়িং ফিল্ড চোখে পড়ার মতো ।

  • image

    MD ASHRAFUL

    ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

    কি দরকার জনগণের টাকা খরচ করে এমন নির্বাচন দেয়ার ।যেখানে জনগণের ভোট দানের অধিকার থাকেনা।

  • image

    Hassan

    ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮

    Pure torture..

  • image

    Mr.RupoM.

    ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮

    যেখানে দেখিবে বিএনপি জামাত সেখানেই গ্রেফতার কর হে পুলিশ ভাই!! নির্বাচনের মাঠে কোন নাশকতাকারীকে দেখতে চাইনা। জনগনের গনতন্ত্র মানে পলাতক বা অপরাধীদের জন্য মুক্ত জীবন নয়।

সব মন্তব্য