সংসদ নির্বাচনে এ তৎপরতা কেন দেখা যায়নি?

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ৩১ মার্চ, ২০১৯

নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। ফাইল ছবিনির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেছেন, অনেকে বলেন, উপজেলা নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন (ইসি) ঘুরে দাঁড়িয়েছে। নির্বাচনে অনিয়মের কারণে বিভিন্ন কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ বন্ধ করা এবং অনিয়মের সঙ্গে জড়িত পুলিশ ও অন্য কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কিন্তু প্রশ্ন জাগে, সংসদ নির্বাচনের সময় ইসির এই তৎপরতা দেখা যায়নি কেন?

আজ রোববার উপজেলা নির্বাচনের চতুর্থ পর্বের ভোট গ্রহণ শেষে কমিশনার মাহবুব তালুকদার এ কথা বলেন।

নির্বাচন ভবনে নিজ কক্ষে সাংবাদিকদের মাহবুব তালুকদার আরও বলেন, ‘উপজেলা নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হচ্ছে না। যেসব কারণে আমরা ভোটারদের আস্থা অর্জনে ব্যর্থ হয়েছি, তার কারণ খুঁজে বের করা আবশ্যক। এ অবস্থায় ভোটারদের ওপর দায় চাপানো ঠিক নয়। গত দুই বছরে যতগুলো নির্বাচন হয়েছে, তা নিয়ে ইসির আত্মসমালোচনা প্রয়োজন। ওই সব নির্বাচনে যেসব ভুলভ্রান্তি হয়েছে, সেগুলোর পুনরাবৃত্তি রোধ করা দরকার।’

স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান হিসেবে উপজেলা পরিষদের স্বায়ত্তশাসন নেই, উল্লেখ করে মাহবুব তালুকদার বলেন, সাংসদদের হাত থেকে উপজেলা পরিষদকে মুক্ত করা না হলে এর নির্বাচন কখনোই সুষ্ঠু ও ত্রুটিমুক্ত হওয়া সম্ভব নয়। তবে এটি পুরোপুরি রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের বিষয়।

মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্যই নির্বাচন। কিন্তু ভোটদানে ভোটারদের অনীহা পরিলক্ষিত হচ্ছে। বিষয়টি গণতন্ত্রের প্রতি মুখ ফিরিয়ে নেওয়ার নামান্তর। কিন্তু আমরা গণতন্ত্রের শোকযাত্রায় শামিল হতে চাই না। রাজনৈতিক দল ও রাজনীতিবিদদের বিষয়টি গুরুত্বসহকারে ভেবে দেখতে হবে।’

মাহবুব তালুকদারের মতে, সংসদ ও স্থানীয় নির্বাচনের দায়িত্ব পুরোপুরি ইসির হাতে ন্যস্ত করা উচিত। তিনি বলেন, রিমোটের মাধ্যমে নির্বাচনকে কন্ট্রোল করা হলে নির্বাচনব্যবস্থা বিপর্যয়ের মধ্যে পড়বে, যা গণতন্ত্রের জন্য কাম্য নয়। এ জন্য রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত অপরিহার্য। নির্বাচনে সবার জন্য সমান সুযোগ রাখা হলে রাজনৈতিক দল ও ভোটারদের অনীহা অবশ্যই দূর হবে।

মন্তব্য

  • image

    Dipu Zaman

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    স্যার এমন একটা ভাব করতেসেন যে কিছুই জানেন না :P

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    গাছ কাটার পর আর পরিচর্যা করে লাভ নেই। মনে হয় এদেশের কোন পাগলেরও আর বুঝার বাকি নেই যে বর্তমান সরকারের হুকুম ছাড়া কেউ কিছু করতে পারবে না। আর সরকারের কথা বলবেন? ওরাতো এটাই চায় কারণ ওদের বৈশিষ্ট্যই এটা।

  • image

    Arran Shah

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    প্রশ্নটা নিজেকেই করুন। আপনি ও ইলেকশান কমিশনের অংশ। আপনি কি করছেন?????? কিছু না করতে পারলে চাকুরি ছেরে দিন, যদি সৎ সাহস থাকে। তারপর সাংবাদিকদের দেকে লেকচার মারুন, কেও কিছছু বলবে না।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ৩১ মার্চ, ২০১৯

      বর্তমানে ইলেকশান কমিশনের নিয়ন্ত্রণে কি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়? প্রশাসন থেকে আরম্ভ করে মাঠ পর্যায়ের এজেন্ট পর্যন্ত সবাই সরকারের বা লীগের নিয়ন্ত্রণে।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    অভিনন্দন আপনার সাহসী বক্তব্যের জন্য।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    What you have done? Were you not a part of EC on that time??

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ৩১ মার্চ, ২০১৯

      Nothing is under control of EC. Everything is governed and guided by the government..

  • image

    Rupom

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    কারন তখন আপনি বসে বসে মনের সুখে পান চিবিয়ে সময় কাটিয়ে ছিলেন তাই হয়ত কোন দিকে নজর দেয়ার সুযোগ হয়নি।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    ওই ঘুরেফিরে একই কথা৷ বিএনপি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলে দেখতেন উপজেলা নির্বাচনে কি হতো৷

  • image

    Mohammed Ali

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    পদত্যাগ করে দেখিয়ে দেন, যে এই দেশে ক্ষমতাসীনদের কারনে নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব নয়।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    অন্য নির্বাচনে ক্ষমতার পরিবর্তন হয় না এজন্য ।

  • image

    Kabir

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    এইরকম কথা কি একজন নির্বাচন কমিসনের সাজে? উনি রাজনীতিবীদদের মত কথা বলছেন।

  • image

    Akil khan

    ৩১ মার্চ, ২০১৯

    খালি কথা আর কথা........

  • image

    Sadi Nazrul Islam

    ০১ এপ্রিল, ২০১৯

    কি ভাবে দিবে তখন অন্য দল ছিল, এখন তো নিজেরা নিজেরা..

সব মন্তব্য