বিএনপির পাঁচ সাংসদের লোভ ছিল বেশি: গয়েশ্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ৩১ মে, ২০১৯

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। ফাইল ছবিবিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, তাঁর দলের পাঁচ সাংসদের শপথ নেওয়ার পেছনে সরকারের যতটা না চাপ ছিল, তার চেয়ে বেশি ছিল তাঁদের (পাঁচজনের) লোভ।

আজ শুক্রবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী তাঁতী দল আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৮তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘আমাদের সিদ্ধান্ত ছিল সংসদে যাব না। কিন্তু সংসদে গেলাম। এখানেই তো বুঝতে হবে, আমাদের প্রতিশ্রুতির অভাব আছে। আমরা অবাধ্যকে বাধ্য করতে পারি না। কারণ, ওই পাঁচজনের দলের প্রতি, রাজনীতির প্রতি অঙ্গীকার নেই। এই পাঁচজন অবাধ্যকে যদি আমরা বাধ্য করতে পারতাম, তাহলে আজকে আমাদের দুঃখ থাকত না।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, ‘এই বিষয়গুলো আপনাদের বুঝতে হবে। এখন এই পাঁচজন যদি দল ছেড়ে চলে যেতেন! তাঁরা যেতেনই। সেই কারণে আপনাকে প্রেক্ষাপটটা বুঝতে হবে। এঁদের লোভ আছে, এঁদের ওপর চাপ আছে। তবে চাপের চেয়ে লোভ বেশি। এঁরা একটা দিনের জন্য বলেছেন যে “বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মুক্ত না হলে সংসদে যাব না”? এই পাঁচজনের কেউ বলেছেন? এক দিন? কেউ বলছেন? বলেন নাই। তাহলে তাঁদের সংসদে যাওয়াটা জরুরি। বেগম জিয়ার মুক্তিটা কিন্তু জরুরি না।’

বিএনপির নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্য করে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘আমরা বেশি কাজে ফাঁকি দিই। আমরা কমিটি করি। কিন্তু কেউ সংগঠন করি না। একটি কমিটি মানেই সংগঠন না। আর নেতৃত্বের যেখানে দুর্বলতা হয়, সেখানে বহুজনের কমিটি হয়। কমিটিতে যখন যুগ্ম আহ্বায়কের সংখ্যা বেশি, সদস্যসচিব থাকেন, তখনই বুঝতে হবে, কেউ কাউকে মানেন না। তার মানে অঙ্গীকারের অভাব। সংগঠনের চেয়ে নিজেকে সবাই বড় মাপের দেখতে চান।’

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘জিয়াউর রহমানকে কি আমরা অনুসরণ করেছি? তাঁকে যদি আমরা অনুসরণ করি, তাহলে আমাদের ভাগ্যের চাকা ঘোরে না। আমরা গাড়ি-বাড়ির মালিক হতে পারি না। কারণ, ওনার রাজনৈতিক জীবনে গাড়ি-বাড়ি ও বিত্তশালী হওয়ার কোনো অনুপ্রেরণা ছিল না। ওনার রাজনীতি ছিল দেশপ্রেম ও দেশের মানুষকে জাগিয়ে তোলা।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, ‘যাঁরা উপদেশ দেন, তাঁরা নিজের বেলায় সেটা কতটুকু বাস্তবায়ন করেন, তা একটু ভেবে দেখবেন। আর দলের উপদেষ্টা-সম্পাদক বেশি, কর্ম সম্পাদকটা একটু কম। বলা হয়, ঘরে বসে মিটিং করব না। কিন্তু ঘরেই ডাকা হয়। আর আজকে ঘরে না ডেকে যদি বাইরে ডাকা হতো, তাহলে খুব বেশি ভালো লাগত।’

আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে সভায় বিএনপির নেতা খায়রুল কবির খোকন, সেলিম ভূঁইয়া, ২০-দলীয় জোট নেতা সাইফুদ্দিন আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

মন্তব্য

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মে, ২০১৯

    লোভ কার নাই স্যার, ক্ষমতায় যাওয়া, ক্ষমতায় থাকা সব কিছুইতো অবৈধ অর্জনের লোভেই হয়।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মে, ২০১৯

    What is BNP? Is it a political party or a family of obedient servants of Zia Family? Look at Rahul Gnadhi; he wants to resign but Congress will not let him but he is insistent on doing so, because he failed to win the election! In here we got a convicted criminal son who fled the country and a mother who is serving a jail term. And then these unnecessary few signing the songs of praise for those two only. people of this country do not matter to them, they are self serving politicians waiting for power grab. It will not happen in another decade at least.

  • image

    A.K.M.OBAIDULLAH

    ৩১ মে, ২০১৯

    কথাটা আপনার মুখে মানায় না ; কারন আপনি নির্বাচনে জিতেন নি !

  • image

    NAhmed

    ৩১ মে, ২০১৯

    বাস্তবে বিএনপিতে ত্যাগী নেতা রিজভী ও ফখরুল ছাড়া আর কেউ নেই. যারা আছে তারা সবাই হয় লোভী না হয় আওয়ামী লীগ সরকারের আন্ডারকভার এজেন্ট

  • image

    Rawnak Mustafa

    ৩১ মে, ২০১৯

    ওরা তো লোভী, আর আপনারা লেইজি। এজন্যই তো দলের করুণ দশা। আওয়ামী লীগ লেইজি দল না বলে আজ টানা ৩য় বারের মত ক্ষমতায়।

  • image

    তাসলিমা বেগম

    ৩১ মে, ২০১৯

    উনি বিএনপির বাস্তব চিত্রটাই তুলে ধরলেন না, তবে প্রতিপক্ষ যত দুর্বল হোক না কেন ভোট চুরি ক্ষমতায় যাওয়া কাউকে কোনদিন মেনে নিতে পারবো না

    • image

      A.K.M.OBAIDULLAH

      ৩১ মে, ২০১৯

      তাতে কার কি ?

  • image

    সা মো মছিহ্ রানা

    ৩১ মে, ২০১৯

    রাজপথে অনুপস্থিত, সংসদেও নেই; এভাবে কোন রাজনৈতিক দলের অস্তিত্ব থাকে? ক্ষমতার জন্য শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের নীতি-নেতিকতা-আদর্শ ত্যাগ করেও কোনও লাভ হয়নি। লাভ হয়নি স্বাধীনতা বিরোধী মোনাফেকচক্রের সাথে কোলাকুলি করেও। এখনও সময় আছে দলের শীর্ষস্থানীয়রা আন্তরিক মনোভাব নিয়ে ঐক্যবদ্ধ হোন, নিজেদের ভুলগুলো চিহ্নিত করুন-ভুল থেকে শিক্ষাগ্রহণ করুন, তৃণমূল থেকে সর্বোচ্চ পর্যন্ত নেতাকর্মিদের ঐক্যবদ্ধ করুন-ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ণ করন, সুবিধাবাদীদের আনমনে ত্যাগ করুন। তারপর মাঠে নেমে পড়ুন। যদি সম্ভব না হয় তাহলে আসন শূণ্য করুন। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের নীতি-নৈতিকতা-আদর্শের দেশপ্রেমিক সৈনিকের আকাল বাংলাদেশে কখনও হবে না। ভুললে চলবে না দেশের সিংহভাগ জনগোষ্ঠী দেশপ্রেমিক, দেশের স্বাথীনতা-স্বার্বভৌমত্ব রক্ষায় জীবন দিতেও কুন্ঠিত হবে না।

  • image

    শহিদ উল্যাহ মিয়াজি

    ৩১ মে, ২০১৯

    বিএনপি বিলীন। ”টকশো” পটুরা সংসদে ভাল করতে পারবে। কথার পিঠে কথা বলে প্রাণবন্ত করে আগামী 5 বছর সুখে থাকতে সমস্যা হবে না। শুধু সমস্যা অপশাসন রোধে রাস্তায় দাঁড়ানো।

  • image

    ফখরুদ্দিন

    ৩১ মে, ২০১৯

    এটা পুরো বিএনপির চিত্র।

  • image

    Amra Shob Bujhi

    ৩১ মে, ২০১৯

    Zia-Ur-Rahman was never a political leader. He was a public servant. However, his greed and high ambition created a party of opportunist like BNP. Now they are struggling at all levels. There is a lack of visionary honest leadership in BNP and party supporters are mostly ignorant. We need opposition parties that will be honest and fight to improve quality of the life of millions. If our cricket team or football team or any other sports team win, they will naturally congratulate and encourage them. They will speak strongly against drug trading and unnecessary student politics in an independent country. These steps will encourage young voters. But BNP failed to deliver a vision to nation apart from contentiously crying for Khaleda Zia's freedom and Tarek's innocence. Not a single care for the people of this country.

  • image

    ABDUL MAJID QUAZI

    ৩১ মে, ২০১৯

    জিয়াউর রহমানকে কি আমরা অনুসরণ করেছি?  আমি বহু মন্তব্যে এই কথাটা লিখেছি। নিজ দলের প্রতিষ্ঠাতার আদর্শ থেকে বিএনপির বিচ্যুতি আজকের পরিণাম । খালেদার এই পরিণাম ও জিয়ার আদর্শ থেকে বিচ্যুতির কারণে। ভাগ্যের চাকা পরিবর্তনের জন্য দলের সবাই জিয়ার আদর্শ বিচ্যুত গয়েশ্বর রায়ের বক্তব্য ধ্রুব সত্য।

    • image

      ফখরুদ্দিন

      ৩১ মে, ২০১৯

      জিয়ার আদর্শ!! কি ছিল? রাজাকারদের প্রতিষ্ঠিত করা। বিএনপি এখনো সেই আদর্শই লালন-পালন করে।

    • image

      msIqbal

      ৩১ মে, ২০১৯

      ভাইসাব কি জিয়ার একটা আদর্শের কথা উল্লেখ করতে পারেন যে আদর্শ আপনি নিজে ধরে রেখেছেন এবং জাতি হিসেবে আমাদেরও ধারন করা উচিত!

  • image

    Deepak Eojbalia

    ৩১ মে, ২০১৯

    How BNP wage a big movement? Sacrilege is big thing.

  • image

    Sohel S.parvez

    ৩১ মে, ২০১৯

    অতি সত্যি কথা।আমি বিএনপি করি না তবে গয়েশ্বর রায়ের প্রতি আমার ভালোবাসা আছে ব্যক্তিগত ভাবে।তার প্রতিটি কথাই সত্যি।যারা এমপি হয়েছেন তারা লোভী।আর কিছু না।সরকার কি চাপ সৃষ্টি করে ছিলো তাদের ওপর?সেই চাপ টা কি জেলে ভরে দেয়ার?মোটেই না।

  • image

    শিপন England

    ৩১ মে, ২০১৯

    আপনি নির্বাচিত হলে এই কথাগুলু এভাবে বলতেন না , আর ইহাই বাস্থবতা । আপনি সংসদে যেতেন সুজুগ হাতছাঢ়া হওয়ার কারনে বকেই যাচ্ছেন ! ?

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মে, ২০১৯

    বিএনপির লোকজনদের উচিত ওই দুজনকে বাদ দিয়ে এগিয়ে যাওয়া, তাদের জন্য অপেক্ষার কোন মানেই হয়না, এমন কোন আদর্শিক গুনও তাদের ভিতর নাই কলংক ছাড়া।

  • image

    দূরন্ত পথিক

    ৩১ মে, ২০১৯

    আপনি বা আপনার বেয়াই কেউই তো পাস করতে পারেন নি। পাস করলে বুঝা যেত আপনাদের কি ....ছিল ? এক ফখরুল রে তাঁর পদ থেকে সরানোর জন্যই যা গ্রুপিং করতেসেন আর এমপি /মন্ত্রীর অফার পেলে কি যে করতেন, তা বুঝতে কি আর বাকি আছে !

  • image

    Rupom

    ৩১ মে, ২০১৯

    যতদিন বিএনপিতে গয়েশ্বর রায়দের মত অগণতান্ত্রিক শক্তি থাকবে ততদিন বিএনপি অন্ধকার ময় আবর্তেই ঘুরপাক খাবে।

  • image

    Amra Shob Bujhi

    ৩১ মে, ২০১৯

    BNP must let all of us know how much money they have made during last election's candidate selection business. Tarek is quiet now but just before the next election he will be back again to do the selection business and make more money out of these foolish party leaders and supporters. And I don't blame Tarek because being foolish is also a crime.

  • image

    mohammad rahman

    ৩১ মে, ২০১৯

    এ দেশে বালিসে লোভ , বিদেশে চিকীৎসায় লোভ , লোভ কোথায় নাই ?

    • image

      NAhmed

      ৩১ মে, ২০১৯

      ক্ষমতায়ও কৌশলী লোভ

  • image

    Mustafa Hasan

    ৩১ মে, ২০১৯

    ফখরুল ইসলাম বলেছিলেন তারেক রহমানের অনুমতিতে উনারা শপথ নিয়েছেন এটি আপনাদের রাজনৈতিক কৌশল, U turn , আরো কতো কি। আপনি এখন বলছেন উনারা লোভী । আসলে BNPতে কেউ কারো কথা মানে না কোন নেত্রীত্ত নাই ,,

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মে, ২০১৯

    Please do not blame BNP. Please blame who were not allowed to vote, or their vote been casted the night before. Please nominate EC for a Nobel prize for night vote.

  • image

    জুবায়ের হোসেন

    ৩১ মে, ২০১৯

    জিয়াউর রহমান এর আদর্শের কারণে আজকে আপনাদের এই অবস্থা।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মে, ২০১৯

    Election!!!! was there any election on that day? how AL elected everybody know.

  • image

    Rashidullah

    ৩১ মে, ২০১৯

    যারা ভোট দিয়েছে তাঁদের অবজ্ঞা করা ভালো না।

    • image

      রাজিব

      ৩১ মে, ২০১৯

      ভোট দিয়েছে- কে, কোথায়, কবে, কিভাবে?

  • image

    এস টি এম মিলন

    ৩১ মে, ২০১৯

    ফকরুল বলেন এক কথা আর আপনি বলেন আর এক কথা। আসলে কারো সাথে কারো মিল বা বন্ধুত্ব নেই। ভূলে ভরা বিনপি।

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মে, ২০১৯

    আগামী নির্বাচনে বিএনপি একটি আসনও পাবে না, কারণ বিএনপি এখন রাজনীতি থেকে অনেক দূরে। আর বিএনপির অস্তিত্ব বিলীন হতে বেশি দেরি নাই

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মে, ২০১৯

    Leave BNP at once.

  • image

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

    ৩১ মে, ২০১৯

    ভাইসব কেউ কি আমাকে দয়া করে বলবেন “জিয়ার আদর্শ”টা কি? সব সময় শুনি কথাটা,কিন্তু আদর্শটা কি এটা শুনিনা।

    • image

      নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক

      ০১ জুন, ২০১৯

      ইতা কিতা কইতাছেন, “জিয়ার আদর্শ”টা জানুইন্না!!! 1) অবৈধ ক্ষমতা দখল, 2) ঠান্ডা মাথায় খুন, 3) পাকিস্থানী আদর্শ বাস্তবায়ন সহ অসংখ্য আদর্শ রহিয়াছে উনার।

  • image

    msIqbal

    ৩১ মে, ২০১৯

    অতি লোভে তাঁতি নষ্ট, পাঁচ এমপির লোভে বিএনপি ভ্রষ্ট!

সব মন্তব্য